এসব পিকনিক চলচ্চিত্রের উন্নয়নে কোনো ভূমিকা রাখবে না। তবে এটা নিজেদের মধ্যকার দলাদলি দূর করতে পারে। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির পিকনিকে গিয়ে এমনটাই বলেছেন আলোচিত চিত্রনায়ক অনন্ত জলিল। গতকাল বুধবার ঢাকার অদূরে গাজীপুরের একটি রিসোর্টে স্ত্রী চিত্রনায়িকা বর্ষাকে সঙ্গে নিয়ে যান।

ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে শুরু হচ্ছে অনন্ত জলিলের নতুন সিনেমা ‘দিন: দ্য ডে’–এর শুটিং। এই ছবির মাধ্যমে কয়েক বছর বিরতির পর আবার শুটিংয়ে ফিরছেন অনন্ত ও বর্ষা। ছবিটির শুটিং বাংলাদেশ ছাড়া ইরান, তুরস্ক ও আফগানিস্তানের বিভিন্ন জায়গায় হবে। অভিনয়শিল্পীরাও থাকবেন এসব দেশের।

 

ব্যবসায়ী অনন্ত জলিল ২০১০ সালে ‘খোঁজ: দ্য সার্চ’ সিনেমায় অভিনয়ের মধ্য দিয়ে আলোচনায় আসেন। এরপর একে একে আরও পাঁচটি সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। ছবিগুলো হচ্ছে ‘হৃদয়ভাঙা ঢেউ’, ‘দ্য স্পিড’, ‘মোস্ট ওয়েলকাম’, ‘নিঃস্বার্থ ভালোবাসা’ এবং ‘মোস্ট ওয়েলকাম টু’। ‘নিঃস্বার্থ ভালোবাসা’ ও ‘মোস্ট ওয়েলকাম টু’ ছবির পরেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোচনা শুরু হয় অনন্ত জলিলকে নিয়ে। সিনেমায় অভিনয়ের কারণে ব্যবসায়ী অনন্ত জলিলকে চলচ্চিত্রের বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও নিয়মিত দেখা গেছে। এরই ধারাবাহিকতায় এবারও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির বনভোজনে (পিকনিক) যান। মুখোমুখি হন সংবাদমাধ্যমের। সেখানে তিনি বনভোজনের বিষয়ে বলেন, ‘এই আয়োজনে বরাবরই আমরা আসার চেষ্টা করি, কারণ আমরা শিল্পী। এখানে এসে ভালোও লাগে। শিল্পী আর পরিচালকদের মধ্যে একতা আছে। আমার অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি, শুধু প্রযোজকদের মধ্যে কোনো একতা নেই। অনেকবার চেষ্টাও করেছি, কিন্তু ফলাফল কিছুই হয়নি।’

পিকনিক করে সিনেমার উন্নতি হবে না: অনন্ত

সপ্তাহের ব্যবধানে সূচকের বড় ধরনের পতন হলেও লেনদেন বেড়েছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)। চলতি সপ্তাহে গত সপ্তাহের চেয়ে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১১৮ পয়েন্ট। গত সপ্তাহের তুলনায় লেনদেন বেড়েছে ৩৪৩ কোটি টাকা।

চলতি সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসে মোট লেনদেন হয়েছে ৫ হাজার ১৬৮ কোটি টাকা, গত সপ্তাহে যা ছিল ৪ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা।

আজ বৃহস্পতিবার সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে লেনদেন শেষে ডিএসইএক্স সূচকের বড় ধরনের পতন হয়েছে। কমেছে ৬৩ পয়েন্ট, অবস্থান করছে ৫ হাজার ৮২১ পয়েন্টে। মোট লেনদেন হয়েছে ৯৯২ কোটি টাকা। হাতবদল হওয়া শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৪টির, কমেছে ২৩৬টির, অপরিবর্তিত আছে ২৬টির দর। গতকাল বুধবার লেনদেন শেষে ডিএসইএক্স সূচক কমে ৪০ পয়েন্ট। অর্থাৎ দুই কার্যদিবসেই সূচক কমেছে ১০০ পয়েন্টের বেশি। গতকাল মোট লেনদেন হয় ১ হাজার ২৪ কোটি টাকা।

আজ লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে যে ১০ কোম্পানি, সেগুলো হলো ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড, মুন্নু সিরামিক, গ্রামীণফোন, এশিয়ান ইনস্যুরেন্স, প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড, প্রভাতি ইনস্যুরেন্স, অ্যাডভেন্ট ফার্মা লিমিটেড, ইনটেক ও খুলনা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড।

সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক কমেছে, বেড়েছে লেনদেন

এবারের বিপিএল তাসকিনকে নতুন করে আবিষ্কার করার আসর। বিপিএল খেলেই তরুণ তাসকিন প্রথমে নজর কেড়েছিলেন। চোট ও ছন্দহীনতা মিলিয়ে গত বছরে প্রায় চোখের আড়ালে চলে যাওয়া এই পেসার নিজেকে নতুন করে চিনিয়েছেন এবার। ২১ উইকেট আছে তাঁর নামের পাশে। আজকের ম্যাচে ২ উইকেট পেলেই বিপিএলের এক আসরে সবচেয়ে বেশি উইকেটের নতুন রেকর্ড গড়বেন।

এখন পর্যন্ত রেকর্ডটা দুজনের দখলে। সাকিব আল হাসান ও কেভন কুপার। কুপার ২০১৪-১৫ আসরে বরিশাল বুলসের হয়ে ৯ ম্যাচে ২২ উইকেটে নিয়েছিলেন। গত আসরে সাকিব ১৫ ম্যাচে ২২ উইকেট নেন। ১১ ম্যাচে ২১ উইকেট নিয়ে তাসকিন এই তালিকার তিনে আছেন। এক আসরে ২১ উইকেট অবশ্য আছে আবু হায়দার (২০১৫-১৬, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস) ও ডোয়াইন ব্র্যাভোরও (২০১৫-১৬, ঢাকা ডায়নামাইটস)। তবে শেষের দুজন ম্যাচ বেশি খেলেছেন তাসকিনের চেয়ে।

তাসকিন এবারের বিপিএলের শুরুটা করেছিলেন প্রথম ম্যাচে ৩১ রান দিয়ে উইকেটশূন্য থেকে। তবে পরের ১০ ম্যাচে মাত্র একবার উইকেটশূন্য থেকেছেন। ৯ ম্যাচে উইকেট তুলে নেওয়ার মতো ধারাবাহিক ছিলেন তাসকিন।

সাকিবের রেকর্ড ভেঙে দিতে পারবেন তাসকিন?

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী যে চা-চক্রের আয়োজন করেছেন, সেখানে যোগ দিয়ে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট খোলামেলা আলাপ করতে পারে। প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রের আহ্বান বিএনপি বর্জন করেছে। এটা তাদের নেতিবাচক রাজনীতির ধারা।

আজ শুক্রবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

 

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি নেতিবাচক রাজনীতির কারণে খাদের কিনারে চলে এসেছে। বিএনপি যদি তাদের চিরাচরিত নেতিবাচক রাজনীতির ধারা আঁকড়ে ধরে থাকে, তাহলে তারা অন্ধকারে খাদে পড়ে যাবে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচিত সদস্যদের সংসদে না যাওয়ার প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, সংসদ বর্জন করা দলের জন্য ক্ষতিকর। নির্বাচনে জয়-পরাজয় আছে। রাজনীতিতে জোয়ার-ভাটা আছে। ঐক্যফ্রন্ট-বিএনপি সংসদ বর্জনের মতো অগণতান্ত্রিক মানসিকতার প্রকাশ ঘটালে সেটা গণতন্ত্রের জন্য শুভ নয়। তাদের নিজের অস্তিত্বের জন্য ক্ষতিকর।

প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রে ঐক্যফ্রন্ট খোলামেলা আলাপ করতে পারে: কাদের

স্কুলটির ধারঘেঁষে ইটভাটা। ওতে আগুন জ্বলে। ইট পোড়ে। মাটি, খড়ি, ইট বোঝাই করে ট্রাকের পর ট্রাক আসে। ধুলো আর ধোঁয়া প্রচুর। এর মধ্যেই চলে শিক্ষার্থীদের আসা-যাওয়া, পড়াশোনা আর খেলাধুলা।

তল্লাবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টির তিন পাশেই রাস্তা। মাগুরা সদর থেকে মহম্মদপুর উপজেলায় যাওয়ার পথে চোখে পড়ে স্কুলটি। ২০০১ সালে চালু হয় এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। তখন থেকেই স্কুলের পাশে ইটভাটা। এস এন ব্রিকস নামে ওই ইটভাটার পাশেই এস এন টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড বি এম কলেজ নামে আরও একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে।

 

তল্লাবাড়িয়া স্কুলের ক্লাসে গিয়ে দেখা গেল, শিক্ষার্থীদের জানালা ঘেঁষে ইটের সারি। কিছু ইট পোড়ানো হয়েছে, কিছু রয়েছে পোড়ানোর অপেক্ষায়। শিক্ষার্থীরা জানায়, কিছুক্ষণ পরপর ধুলোর আস্তরণ পড়ে বই ও বেঞ্চের ওপর। যান চলাচলের শব্দে কানে তালা লাগে।

ইটভাটার কারণে অসুবিধা হয় কি না, জানতে চাইলে স্কুলের সহকারী শিক্ষক নাজনীন আক্তার বললেন, অসুবিধা তো অবশ্যই হয়। ইটভাটার পাশাপাশি রাস্তা থেকে প্রচুর ধুলাবালি আসে।

ইটভাটার সহকারী ম্যানেজার হাবিবুর রহমান জানান, এই ভাটায় তিন লাখ ইটের ধারণক্ষমতা রয়েছে। প্রতিদিন গড়ে সাড়ে তিন শ মণ জ্বালানি কাঠ লাগে।

স্কুলের পাশেই ইটভাটা, ধুলো–ধোঁয়ায় চলছে পাঠ

ফেসবুকে আমরা..

পুরাতন খবর

MonTueWedThuFriSatSun
    123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930 
       
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031   
       
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31      
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930     
       
    123
11121314151617
18192021222324
25262728293031
       
  12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930   
       
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  
       
      1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30      
    123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728   
       
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031   
       
Translate »